Article

উমরাহ তে যাওয়ার সময় যে দশটা টিপস মেনে চললে আপনার কাজে আসবে (10 Tips for Umrah )

10-tips-for-umrah-hajj-modest-collection

মানসিক প্রস্তুতি

উমরাহ এর জন্য মেন্টাল প্রিপারেশন টা খুব জরুরী। যে কাজগুলো এই প্রিপারেশন এর মধ্যে পড়ে, সেগুলো হলো, যথাযথ ইসলামিক জ্ঞান এবং উমরাহ চলাকালীন সময়ে কি হতে পারে বা নাও হতে পারে এই সম্পর্কে একটা পরিষ্কার ধারণা থাকা।বিভিন্ন সেমিনার কিংবা ভিডিও ক্লিপ দেখতে পারেন, বই কিংবা বিভিন্ন আর্টিকেল পড়তে পারেন। চারপাশের রিসোর্স এর তো অভাব নেই। যেটা ভালো লাগে সেটা পড়বেন আইডিয়া নেবেন এমন না যে মুখস্ত করে ফেলতে হবে, বিভিন্ন সোর্স থেকে আইডিয়া নিয়ে আপনার কাছে যেটা ভালো লাগে সেভাবে এপ্লাই করবেন।

 

সীরাহ

মনে রাখবেন আপনি কিছুদিন পর এমন এক পথ ধরে হেঁটে যেতে চাচ্ছেন যে পথে অনেক নবী-রাসূল সাহাবারা হেঁটে গেছে গেছেন। আল্লাহ আল্লাহ ঘরের মেহমান হতে যাচ্ছেন আপনি, বিশাল ব্যাপার-স্যাপার; তাই প্রিপারেশন সেভাবেই হওয়া উচিত তাই না? নবী রাসুলের জীবনী গ্রন্থ পড়তে পারেন, তাহলে বিভিন্ন জায়গায় জিয়ারত করতে গিয়ে আপনি বেশি কানেক্টেড ফিল করবেন।

 

টুকিটাকি

লাগেজ আইডেন্টিফাই করার জন্য লাগেজের হাতলে কালারফুল কোন আনকমন স্কচটেপ দিতে পারেন।এয়ারপোর্টে লাগেজ পিক করাটা বেশ সহজ হয়ে যাবে।

এহরামের কাপড় টা এয়ারপোর্টে করে নেওয়াটাই সহজ, মেয়েরা বাসা থেকে পরেও বের হতে পারেন।

আপনার লাগেজে সানগ্লাস এবং ছাতা রাখতে পারেন, ওখানে বিভিন্ন জায়গা ঘুরতে গেলে প্রচন্ড রোদের সময় এগুলো কাজে দেবে।

সব সময় ক্যারি করা যায় এমন লাইটওয়েট ব্যাকপ্যাক সাথে রাখবেন, হারাম শরীফ ঢোকার সময় পলিব্যাগে জুতা পেঁচিয়ে ব্যাগে রাখতে পারেন। অনেকে মসজিদের ভেতরে rack এ জুতা রাখেন, হারাম শরীফের দরজা অনেকগুলো এবং দেখতে একই রকম হওয়ায় বের হতে গেলে দেখা যায় অনেকে অন্য দরজা দিয়ে বের হন এবং জুতা খুঁজে পান না, তাই ব্যাগে রাখাটাই সহজ অপশন। তাছাড়া ব্যাকপ্যাক থাকলে হারাম শরীফ থেকে বেরিয়ে আসার সময় হোটেলের জন্য বেশি করে জমজম পানি নিয়ে আসা যায়। অন্য কোন সময় তো এভাবে হিসাব ছাড়া জমজমের পানি খাওয়া যাবে না, তাই অখানে যতদিন থাকবে ততদিন চেষ্টা করবেন সবসময় জমজমের পানি খাওয়ার।

 

পকেট পকেট পকেট    

বোরকায় পকেট থাকাটা একটা must-have বলে আমি মনে করি। খুচরো টাকা মোবাইল নানান প্রয়োজনীয় জিনিস রাখা যায়, যারা জিলবাব খিমার পড়বেন তারা খেয়াল রাখবেন যেন স্কার্ট বা প্যান্টের পকেট থাকে।

মক্কায় যেহেতু গরম পড়ে গেছে তাই সামার ফ্রেন্ডলি বোরকা পড়বেন। বোরকার চেয়ে জিলবাব খিমার এর সাথে স্কার্টটা বেশি কমফর্টেবল অপশন মনে হয় আমার কাছে।


যারা এগুলোতে কমফোর্টেবল না, তারা বোরকা পড়লেও রেডি হিজাব/ইনস্ট্যান্ট হিজাবটা রাখবেন কারণ ওখানে পিন আপ করে হিজাব বাধার সময় আসলে নেই।

ধৈর্য

 এত বড় একটা গেদারিং আপনাকে অবশ্যই ধৈর্য রাখতে হবে। পৃথিবীর নানান প্রান্ত থেকে মানুষ আসবে, যেটা আপনার কাছে স্বাভাবিক সেটা অন্য কারোর কাছে স্বাভাবিক নাও লাগতে পারে। একইভাবে, আপনি যেটা বিরক্ত হচ্ছেন অন্য কারো কাছে হয়তো সেটাই স্বাভাবিক; তাই ধৈর্য রাখবেন।

ফ্লাইট ডিলে হতে পারে, বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ঝামেলা হতে পারে, মনে রাখবেন এগুলো তকদিরে ছিল, ধৈর্য ধারণ করবেন। কারণ ধৈর্য ছাড়া আপনি উমরাহ এর সৌন্দর্য উপভোগ করতে পারবেন না।

 

 দু’আ

 দু’আ কবুলের অসংখ্য মুহূর্ত আপনি পাচ্ছেন, আর তাই এত বড় সুযোগ কাজে লাগাতে একটা দু’আর লিস্ট করে ফেলতে পারেন। আল্লাহর কাছে কি কি চাইবেন সেটা তো থাকবেই, কোন কোন জিনিস থেকে পানাহ চাইবেন সেটাও দু’আর লিস্ট এ রাখবেন। যাদের এখনও উমরাহ করার সৌভাগ্য হয়নি আল্লাহ যেন অচিরেই তাদেরকে সেই সৌভাগ্য দান করেন সেই দু’আ করতে ভুলবেন না, সেই সাথে আমাকেও আপনার দু’আয় রাখবেন।

 


 জাযাকাল্লাহু খাইরান

FARIZA BINTE BULBUL