Hijab

Foot fetism যৌনতার মূল আকর্ষণ যেখানে পা

Foot fetism যৌনতার মূল আকর্ষণ যেখানে পা
ফুট ফেটিশ হলো তারা, মেয়েদের পা দেখলেই যাদের যৌন আকর্ষণ জাগে। এটা ব্যক্তিবিশেষে ভ্যারি করে। কেউ পায়ের সরু আঙ্গুল দেখে উত্তেজিত হতে পারে, আবার কেউ ছোট গড়নের পা। অনেকে পায়ের অলংকার যেমন নুপুর, পায়ের আংটি, নেইল আর্ট এগুলো দেখেও আকর্ষনবোধ করে। আবার অনেকে সরু ফিতার স্লিপার দেখে আকর্ষিত হয়। ফুট ম্যাসাজ করেও অনেকে যৌনাকর্ষণবোধ করে। 

ফুট ফেটিশরা মেয়েদের পায়ের ছবি নিজেদের কালেকশনে রাখে। জুতার দোকানের সেলসম্যানদের মধ্যেও অনেকে ফুট ফেটিশ থাকতে পারে । এর আগে যা লিখলাম সবই ইন্টারনেটের বিভিন্ন ডেটা থেকে প্রাপ্ত। কিন্তু কার মনে কি আছে সেটা তো বোঝার উপায় নেই। জুতার সেলসম্যান অনেকে জুতা পরিয়ে দিতে খুবই আগ্রহী থাকে। ফুট ফেটিশ নিয়ে সার্চ দিলে বেশ কিছু পর্ণ সাইটও চলে আসে।


এই ফুট ফেটিশ কিন্তু খুবই মেইনস্ট্রিম একটা ফেটিজম। এমন না যে কম লোকের মধ্যে এটা আছে। অধিকাংশ পুরুষ মেয়েদের পা দেখলে আকৃষ্ট হন। কেউ অল্প, কিন্তু কেউ কেউ মারাত্মক রকমের ফুট ফেটিশ। খুব সহজেই এটা বুঝতে পারা সম্ভব। একটা মেয়ের সোজাসাপটা ছবির চেয়ে শুধু পায়ের ছবি ফেসবুকে দেখুন; লাইক বেশি পড়বে।


এই কথাগুলো লেখার কারণ হলো, অনেক মেয়েই হয়ত ভাবে, জাস্ট একটু পায়ের ছবি দিলাম, কিন্তু সেটা যে কতটা ভয়ংকর হতে পারে, সেটা তারা জানেনা। পা যে আওরাহ (হিজাবের অন্তর্ভুক্ত) এটা আমি জেনেছি নিকাব ধরারও অনেক পরে। সুন্দর স্যান্ডেলের প্রতি আকর্ষণ বরাবরই ছিল। সেই স্যান্ডেল আমি পরতে পারবোনা, এটা মেনে নিতে কষ্ট হয়েছিল। বারবার মনে হতো, পা কি এমন জিনিস যে  এটাকে ঢাকতেই হবে? পয়েন্ট টু বি নোটেড, নিকাব করা, না করা নিয়ে মত পার্থক্য আছে, কিন্তু পা ঢাকা ফরয। পরে যখন এই ফুট ফেটিশের ব্যাপারটা জানলাম, তখন বুঝতে পারলাম, আমার রব তার সৃষ্টিকে সবচেয়ে ভাল জানেন। পা ঢাকার মাঝেই তিনি কল্যাণ রেখেছেন।


মডেস্ট ড্রেসের সাথে ব্যালেরিনা শ্যু বা কেডস এগুলো খুব সুন্দরভাবে মানিয়ে যায়। দেখতেও বেশ স্মার্ট লাগে। কেডস পরার আরেকটা সুবিধা হলো, মোজা যারা পরতে চাননা, তারা কেডস পরলেও পা ঢেকে থাকে।