Women's health

ভেষজ ঔষধ ব্যবহারের উপকারিতা

ভেষজ ঔষধ ব্যবহারের উপকারিতা

আপনি কি জানেন সারা পৃথিবীতে যে সকল ঔষধ ব্যবহার করা হয় তার শতকরা ২৫ 

ভাগই এসেছে সরাসরি উদ্ভিদ থেকে? আল্লাহ রোগ যেমন দিয়েছে, এর প্রতিকারও দিয়ে

 দিয়েছেন।সাধারণ খাবার খাওয়ার মাধ্যমেই আমরা অনেক রোগ প্রতিরোধ করতে 

পারি।বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা থেকে দেখা গেছে সম্পূর্ণ পৃথিবীর শতকরা ৮০ ভাগ

 মানুষ জীবনের কোন নাকোন সময় প্রাথমিক চিকিৎসা হিসেবে ভেষজ উপাদান ব্যবহার 

করেছে। তাছাড়া বাচ্চাদের জন্য চিকিৎসার ক্ষেত্রে মায়েদের প্রথম পছন্দ থাকে 

ভেষজ উপাদান দিয়ে ঘরোয়া চিকিৎসা।



পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া থাকার সম্ভাবনা খুবই কম বলে ভেষজ চিকিৎসা খুবই 

জনপ্রিয়। আজ আমরা ভেষজ উপাদান ব্যবহারের কিছু উপকারিতা নিয়ে আলোচনা করবো।


১.প্রচলিত ঔষধের চেয়ে সাশ্রয়ী মূল্যে পাওয়া যায়। ভেষজ 

উপাদানগুলো সাশ্রয়ী মূল্যে পাওয়া যায় বলে অনেকেই প্রচলিত ঔষধ কেনার চেয়ে 

ভেষজ চিকিৎসা করা বেশি পছন্দ করে। অনেকেরই প্রতি মাসে ঔষধ কেনার সামর্থ্য 

থাকেনা।তাছাড়া আল্লাহ প্রকৃতিতেই খাবারের মাধ্যমে যে রোগের ঔষধ দিয়ে দিয়েছে

 তা আলাদাভাবে তুলনামূলক বেশি দামে ফার্মেসি থেকে কিনে খাবার কোন মানে 

হয়না। তাই সাধারনত প্রাথমিক চিকিৎসায় ভেষজ উপাদান বেশি জনপ্রিয়।


২.সহজলভ্যতা ভেষজ ঔষধি উপাদানগুলো সহজেই পাওয়া যায়। 

ঔষধি উদ্ভিদের দোকানে ছাড়াও এলাকার মুদির দোকানেও অনেক ঔষধি গুণ সম্পন্ন 

ভেষজ উপাদান পাওয়া যায়।কিছু কিছু উপাদান যেমন আদা, রসুন, মধু, কালোজিরে 

এগুলো সাধারণ ভাবেই মানুষের বাসায় থাকে।আল্লাহ সাধারণ চিকিৎসায় ব্যবহৃত 

ভেষজ উপাদানগুলোকে আমাদের জন্য সহজলভ্য করে দিয়েছেন যেন আমরা হাতেই কাছেই 

প্রয়োজনে তা পেতে পারি।


.এতে রয়েছে উপকারী রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা। সাধারন রোগ 

যেমন সর্দিকাশি, জ্বর ইত্যাদির চিকিৎসা ছাড়াও ভেষজ উপাদান ব্যবহার করা হয় 

দীর্ঘকাল স্থায়ী ও তীব্র রোগের চিকিৎসায়।বড় কোন সমস্যা যেমন 

কার্ডিওভাস্কুলার রোগ, প্রোস্টেটের রোগ, বিষন্নতা, প্রদাহ বা দুর্বল রোগ 

প্রতিরোধ ক্ষমতার চিকিৎসায় ভেষজ উপাদান ব্যবহারে উপকার পাওয়া যায়।


আসুন জেনে নেই কিছু ভেষজ উপাদানের নাম ও এর উপকারিতা। 


কাঁচা রসুনঃ কাঁচা রসুনে উপকারী নিউট্রিয়েন্ট যেমন 

ফ্ল্যাভোনয়েড, অলিগোস্যাকারাইড, সেলেনিয়াম, এলিসিন ও অধিক পরিমাণে সালফার 

রয়েছে।রসুন বিভিন্ন রোগের চিকিৎসায় ব্যবহৃত হয় যেমন ডায়াবেটিক চিকিৎসায়, 

প্রদাহ, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি, রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ, হৃদরোগ, এলার্জি, 

ফানগাল এবং ভাইরাল ইনফেকশনের চিকিৎসায় ব্যাবহৃত হয়।এছাড়াও রসুন চুল পরা 

কমিয়ে দেয়।


আদাঃ আদা সারাবিশ্বে ব্যবহৃত একটি বহুল প্রচিত ভেষজ। 

আদার শেকর থেকে একটি তৈলাক্ত উপাদান জিনিজারল পাওয়া যায় যা খুবই শক্তিশালী 

এন্টিওক্সিডেন্ট ও প্রদাহ বিরোধী এজেন্ট হিসেবে কাজ করে।আদা বদহজম, বমি বমি

 ভাব, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ও ফুসুফুসেদ কার্যকারিতা বৃদ্ধি, ব্যাকটেরিয়াল ও

 ফানগাল সংক্রামক রোধ,পেটের আলসার, ব্যথানাশক, ডায়াবেটিক নিয়ন্ত্রণ ইত্যাদি

 শারীরিক সমস্যায় খুবই উপকারী। এছাড়াও আরও কিছু ভেষজ উপাদানের নাম ও তাদের 

উপকারিতা আমরা আগামী পর্বে আলোচনা করবো।তবে একটা কথা সব সময় মনে রাখতে হবে,

 সুস্থতা আসবে আল্লাহর ইচ্ছায়।তাই চিকিৎসার পাশাপাশি আমাদের আল্লাহর কাছে 

রোগ মুক্তির জন্য দুয়া করতে হবে।আল্লাহ না চাইলে হাজার চিকিৎসাতেও লাভ হবে 

না। (চলবে)